[Poem][newsticker]
Articles by "Rhymes"

চুপচাপ বেচে থাকো কথা বলে লাভ কি?

ঘানি টেনে দিন শেষে
কাপুরুষ বলে বসে
চুপচাপ বেচে থাকো
কথা বলে লাভ কি?
মেনে নিলে সুখি হবে
ক্ষোভ রাখো বাকি।

কহে গুরুজন
সময়ের সমন
ভুল কিছু মেনে নেয়
চুপ থাকা নিরাবতা,
দূর্বলে মিশে গিয়ে 
বেচো কেন দৃঢ়তা ?

বাকি সব হয় নাতো
পুরাপুরি শোধ
ঘুনে খেয়ে মরে যায়
মানবিক বোধ। 

অরণ্য জুয়েল #অরণ্য_জুয়েল

এযুগের চাটুকার.......

কর্তার খুব কাছে 
আগে ভাগে বসা চাই
না হলে ঠিক যেন 
বাড়া ভাতে পরে ছাই।

এরপর শুরু হয় 
তোষামোদি কারবার
কাজ ফেলে জুড়ে দেয়
অকাজের দরবার।

কি কথা বললেন
অফিসের বস
না বুঝে সেকথায়
ঢেলে দেয় রস। 

হাসিমুখে ডানে বামে
মাথাটা নাড়িয়ে
ঠিক মত তাল মারে 
গলাটা বাড়িয়ে।

দিনরাত চলে শুধু
মিথ্যার চাপা বাজি
প্রয়োজনে শুরু করে
পা চাটা কারসাজি। 

চাটুকারি নয় শুধু
আরো আছে ভেলকি
সুবিধা পেতে হলে
এক তেলে চলে কি?

জানে নাতো খুব বেশি
জ্ঞানী জ্ঞানী ভাব করে
চাপাবাজি ধরা খেলে
গোবেচারা ভাব ধরে।

ডিগবাজি মারা তার
সময়ের কাজ
মূর্খের মগজে
জ্ঞানী গুনী সাজ।

নয় তারা কখনই
কিমভুত কিমাকার 
নাম তার যুতসই
এযুগের চাটুকার।

- অরণ্য জুয়েল #অরণ্য_জুয়েল

বিড়াল ছানা, করছি মানা
শোনো দুষ্টু বুড়ি,
সুযোগ পেলে আর করোনা
দুধের বাটি চুরি।

চুরি করা খুবই পচা
বলবে সবাই চোর,
দড়ি দিয়ে বাঁধবে চাচা
কাটবে চুরির ঘোর।

সবাই মিলে চিমটি দেবে
লাগবে ভীষণ চোট,
ব্যাথা পেয়ে অসুখ হবে
ফাটবে তোমার ঠোট।

বিড়াল বুড়ি, ধুত্তুরি
মিথ্যা বলা ছাড়ো,
তোমায় দেবো গুড়মুড়ি
ইলিশ মাছের মুড়ো।

⬛ অরণ্য জুয়েল #অরণ্য_জুয়েল



























টিং টিং গাড়িতে
মামা এলো বাড়িতে
ফাঁদ পেতে মামা নাকি 
মশাদের ধরবে?

শুনে মশা শাশালো
নাকে কাঁমড় বসালো
আজ তারা মামাকেই
নাজেহাল করবে।

ভয় পেয়ে বটু মামা
দৌড়ে পালালো,
রাস্তায় পড়ে গিয়ে
চশমাটা হারালো।

তা নিয়ে বেঁধে গেলো
ভয়ানক হুড়োহুড়ি, 
সেই থেকে থেমে গেলো
মামার বাহাদুরি।

⬛ অরণ্য জুয়েল #অরণ্য_জুয়েল

বলতে পারো কোন দেশেতে
বছর জুড়ে ছয়টি ঋতু
কোন দেশেতে বীরপুরুষের
সাহস দেখে বিশ্ব ভীতু।

কোন দেশেতে হচ্ছে বলো
হরেক রকম ফল আবাদি
কোন দেশেতে শত্রু এলে
সকল মানুষ প্রতিবাদি?

বলতে পারো কাদের ভাষা
সব চেয়ে মধুর
কোন দেশেতে ফুলের রঙ
লালচে সিদুর।

কোন দেশেতে পাহার আছে
আছে ঘন বন
কোন দেশেতে মাঠের ফসল
জুড়িয়ে দেয় মন।

সেই দেশেতে জন্ম আমার
প্রিয় মাতৃভুমি
মাগো তোমার মানচিত্রে
শহস্রবার চুমি।

তোমার গুনের কথা বলে
হয়না কভু শেষ
তুমি আমার শ্যামল শোভার 
সোনার বাংলাদেশ।

⬛ অরণ্য জুয়েল #অরণ্য_জুয়েল

ডালিম গাছে বসলো পাখি
নামটি তার লেজঝোলা,
শিস বাজিয়ে বললো সে
বাবুর সাথে করবে খেলা।

বললো বাবু, শোন পাখি
পড়া লেখায় নয়গো ফাকি
ক্লাসের পড়া শেষ করি ভাই
সময় পেলে খেলতে চাই।

পাখি বললো, আচ্ছা বাপু
শেষ করে নাও লেখা পড়া,
ফাঁকি দিলে জ্ঞান বাড়েনা
হয়না মানুষ বিদ্যা ছাড়া।

⬛অরণ্য জুয়েল #অরণ্য_জুয়েল_

উচি বুচি বিড়াল ছা
খিদে পেটে চুক চুক
খেয়ে নিলো গরম চা
পুড়ে গেলো সারা মুখ।

পোড়া মুখে বসে আছে
ভাবে তার ভুল কি?
ভুল করে খেলো নাকি
আগুনের ফুলকি?

তাই দেখে আক্তার,
ডেকে এনে ডাক্তার
মুখটা দিলো বেঁধে কাপড়ে।

দিন যায়, রাত যায়
খিদে পেটে হায় হায়
বিড়ালটা ঘুম পাড়ে দুপুরে।



মুরশিদের মহৎ গুণ লেনা বুঝে
মুরশিদের মহৎ গুণ লেনা বুঝে।
যাহার কদম বিনে ধরম করম মিছে।।
মুরশিদ যার আছে নিহার
ধরিতে পারে অধর
                    সেই অনাযাসে।
মুরশিদ খোদা ভাবলে জুদা
                    পড়বি পেচে।।১

যত সব কলমা কালাম
ঢুঁড়িলে মিলে তামাম
                    কোরান বিচে।
তবে কেনো পড়া ফাজেল
                    মুরশিদ ভজে।।

আলাদা বস্তু কি ভেদ
কিবা হয় ভেদ মোরশেদ
                    জগৎ মাঝে।
সিরাজ সাঁই কয়, দেখ রে লালন
                    আক্কেল খুঁজে।।
———- বাউল কবি লালন শাহ, পৃ. ৩০৯-১০ লালন-গীতিকায় গানটির অন্তরা-সঞ্চারীর স্থান-বদল হয়েছে; উপরন্তু বেশ কিছু পাঠভেদ আছে। এ জন্য গানটি সম্পূর্ণ তুলে দেওয়া হল:
মুরশিদের মহৎ গুণ নে না বুঝে।
যাহার কদম বিনে ধরম করম মিছে।।
যত সব কালমা কালাম
ধুড়িলে মিলে তামাম
                    কারণ কি যে।
তবে কেনো পড়া ফাজিল
                    মুরশিদ ভজে।।

মুরশিদ যার আছে নেহার
ধরিতে পারে অধর
                    সেই অনায়াসে।
মুরশিদ খোদা ভাবের জুদা
                    পড়বি পেচে।।১

আলাদা কভু কি ভেদ
কিবা সেই ভেদি মুরশিদ
                    জগৎ মাঝে।
সিরাজ সাঁই কয়। দেখ রে লালন
                    আক্কেল খুঁজে।।
পৃ. ১৭২ ১. পেচে < পেচ (ফারসি) + এ প্যাঁচ, কুট চাল, সংকট।

MKRdezign

Contact Form

Name

Email *

Message *

Theme images by Jason Morrow. Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget