[Poem][newsticker]
Latest Post



মুরশিদের ঠাঁই লেনা রে সে ভেদ বুঝে
মুরশিদের ঠাঁই লেনা রে সে ভেদ বুঝে।
এ দুনিয়া সিনায় সিনায়
                    কি ভেদ নবী বিলিয়েছে।।

সিনায় ভেদ সিনায় সিনায়
সফিনার ভেদ সফিনায়
যে ভাবে যার মন হল ভাই
                    সেই ভাবে সে দাঁড়িয়েছে।।

কু-তর্কী কু-স্বভাবী
তারে ভেদ বলে নাই নবী
ভেদের ঘরে দিয়া চাবি
                    সবার কথা জানিয়েছে।।

নেকতন বান্দারা যত
ভেদ শুনে আউলিয়া হয়
নাদানেরা শূল যাচিত
                    মনসুর তার সাবুদ আছে।।

তফসির হসিন যার নাম
তাই ঢুঁড়ে মসনবি কালাম
ভেদই শরা লিখ তামাম
                    লালন বলে সাই নিজে।।
——— লালন ফকির : কবি ও কাব্য, পৃ. ১৩৭ লালন-গীতিকায় শব্দগত কিছু কথান্তর আছে। আভোগ স্তবকটি এভাবে লেখা হয়েছে: তফসীর হোসেনি যার নাম তাই ধরে মসনবী কালাম ভেদ ইশারায় লিখা তামাম লালন বলে নাই নিজে।। পৃ. ১৭৫ সুফি ভাবধারা অবলম্বনে গানটি রচিত। এজন্য আরবি-ফারসি শব্দের আধিক্য আছে। সিনা (বক্ষ), সফিনা, নেকতন (ধার্মিক), বান্দা (মানুষ), নাদান (অপদার্থ), সাবুদ (প্রমাণ), তফসির (ধর্মীয় ব্যাখ্যা-পুস্তক), হসিন, তামাম (সম্পূর্ণ) ইত্যাদি সুফিতত্ত্বের পারিভাষিক শব্দ ব্যবহৃত হয়েছে।



মুরশিদের মহৎ গুণ লেনা বুঝে
মুরশিদের মহৎ গুণ লেনা বুঝে।
যাহার কদম বিনে ধরম করম মিছে।।
মুরশিদ যার আছে নিহার
ধরিতে পারে অধর
                    সেই অনাযাসে।
মুরশিদ খোদা ভাবলে জুদা
                    পড়বি পেচে।।১

যত সব কলমা কালাম
ঢুঁড়িলে মিলে তামাম
                    কোরান বিচে।
তবে কেনো পড়া ফাজেল
                    মুরশিদ ভজে।।

আলাদা বস্তু কি ভেদ
কিবা হয় ভেদ মোরশেদ
                    জগৎ মাঝে।
সিরাজ সাঁই কয়, দেখ রে লালন
                    আক্কেল খুঁজে।।
———- বাউল কবি লালন শাহ, পৃ. ৩০৯-১০ লালন-গীতিকায় গানটির অন্তরা-সঞ্চারীর স্থান-বদল হয়েছে; উপরন্তু বেশ কিছু পাঠভেদ আছে। এ জন্য গানটি সম্পূর্ণ তুলে দেওয়া হল:
মুরশিদের মহৎ গুণ নে না বুঝে।
যাহার কদম বিনে ধরম করম মিছে।।
যত সব কালমা কালাম
ধুড়িলে মিলে তামাম
                    কারণ কি যে।
তবে কেনো পড়া ফাজিল
                    মুরশিদ ভজে।।

মুরশিদ যার আছে নেহার
ধরিতে পারে অধর
                    সেই অনায়াসে।
মুরশিদ খোদা ভাবের জুদা
                    পড়বি পেচে।।১

আলাদা কভু কি ভেদ
কিবা সেই ভেদি মুরশিদ
                    জগৎ মাঝে।
সিরাজ সাঁই কয়। দেখ রে লালন
                    আক্কেল খুঁজে।।
পৃ. ১৭২ ১. পেচে < পেচ (ফারসি) + এ প্যাঁচ, কুট চাল, সংকট।



যাতে যায় শমন যন্ত্রণা
যাতে যায় শমন যন্ত্রণা।
ভুল নারে মন, গুরুর শীতল চরণ
                    ভুল না।।

বেদ বৈদিকের ভোলে ভুলে
গুরু ছেড়ে গৌর বলে
মনের ভ্রম এ সকলে
                    শেষে যাবে রে যাবে জানা।।

চৈতন্য আজব সুরে
থেকে নিকটে দেখায় দূরে
গুরু রূপ আশ্রয় করে
                    কর রূপের ঠিকানা।।

অবোধ জীবের তরে
নিজ রূপ সম্ভব না রে
লালন বলে, তাইতে গোঁসাই রে
                    দেখায় স্বরূপে রূপ নিশানা।।
——– বাউল কবি লালন শাহ, পৃ. ২৭০-৭১

MKRdezign

Contact Form

Name

Email *

Message *

Theme images by Jason Morrow. Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget