[Poem][newsticker]

যাকাত হিসাব করার নিয়ম ২০২২



যাকাত কখন দিতে হয় : 

যাকাত দেওয়ার জন্য নির্দিষ্ট কোনো সময়ের বাধ্যবাধকতা নেই, না থাকলেও রমজান মাসই যাকাত আদায়ের সর্বোত্তম সময়। ফলে বিত্তবানেরা দান-সদকা ও যাকাত কিংবা ফিতরা প্রদানে উৎসাহিত হয়।

রমজান মাসে দান-সাদকা করলে অন্য সময়ের চেয়ে ৭০ গুণ বেশি নেকি হয়।  তাই রমজান মাসে রোজাদার মুসলমানরা একসাথে গরিবের হক যাকাত ও ফিতরা—এ দুটি আর্থিক ইবাদত করে থাকেন। 



যাকাত ফরয হওয়ার মৌলিক শর্ত :

 যাকাত ফরয হওয়ার জন্য কয়েকটি মৌলিক শর্ত রয়েছে। যথা

() মুসলিম হওয়া : কোনো কাফেরের উপর যাকাত ফরয নয়। যাকাত শুধু মুসলিমদের উপর ফরয।

() স্বাধীন হওয়া : গোলাম বা ক্রীতদাসের উপর যাকাত ফরয নয়। কেননা তারা সাধারণত সম্পদের মালিক হতে পারে না। বরং তাদের সবকিছুই অন্যের অধীন।

() নিছাব পরিমাণ সম্পদের মালিক হওয়া : কোনো ব্যক্তির উপর যাকাত ফরয হওয়ার জন্য নিছাব পরিমাণ সম্পদের মালিক হওয়া আবশ্যক।

স্বর্ণের হিসাব অনুযায়ী সাড়ে সাত ভরি স্বর্ণ বা ৮৫ গ্রাম, যার ২২ ক্যারেটের হিসাব অনুযায়ী বর্তমান বাজারমূল্য প্রায় ,৫০,০০০ (সাড়ে চার লক্ষ) টাকা অথবা রৌপ্যের হিসাব অনুযায়ী সাড়ে বায়ান্ন ভরি বা ৫৯৫ গ্রাম, যার ২২ ক্যারেটের হিসাব অনুযায়ী বর্তমান বাজারমূল্য

প্রায় ৪০,০০০ (চল্লিশ হাজার) টাকা। অর্থাৎ কোনো ব্যক্তি সাড়ে সাত ভরি স্বর্ণ অথবা তৎসম পরিমাণ মূল্য ,৫০,০০০ (সাড়ে চার লক্ষ) টাকার অথবা ৫২. ভরি রৌপ্য বা তৎসম পরিমাণ মূল্য ৪০,০০০ (চল্লিশ হাজার) টাকা। টাকার মালিক হলে তার উপর যাকাত ফরয।

এখানে একটি বিষয় মনে রাখা জরুরী যে, ব্যক্তি রৌপ্যের হিসাব অনুযায়ী যাকাত দিবে, না-কি স্বর্ণের হিসাব অনুযায়ী যাকাত দিবেবিষয়টি তার ইচ্ছাধীন। চাইলে সে রৌপ্যের হিসাব অনুযায়ী সাড়ে বায়ান্ন ভরি রৌপ্য বর্তমান বাজারে এর সমমূল্য ৪০,০০০ টাকার মালিক হলে নিজের উপর যাকাত ফরয মনে করে যাকাত বের করতে পারে। অথবা সে অপেক্ষা করতে পারে স্বর্ণের হিসাব অনুযায়ী নিজের উপর যাকাত ফরয হওয়া পর্যন্ত তথা বর্তমান বাজারে সাড়ে সাত ভরি স্বর্ণের সমমূল্য ,৫০,০০০ টাকার মালিক হওয়া পর্যন্ত। মনে রাখতে হবে যে, যাকাত বের করার বিষয়ে ব্যক্তি স্বর্ণ বা রৌপ্যের যে কোনো পদ্ধতিতে যাকাত হিসাব করতে পারবে। তবে ফকীর-মিসকীনের হক্বের প্রতি লক্ষ রেখে রৌপ্যের হিসাব অনুযায়ী যাকাত বের করাই শ্রেয়।

 () সম্পদের এক বছর অতিবাহিত হওয়া : যেদিন ব্যক্তি নিছাব পরিমাণ সম্পদের মালিক হবে, সেদিন থেকে এক চন্দ্র বছর তাকে হিসাব করতে হবে। এর পর থেকে প্রতি বছর ওই একই তারিখে তাকে যাকাত বের করতে হবে।

 ১ লক্ষ টাকার যাকাত কত ২০২

যাকাত শতকরা ২.৫টাকা। সেই হিসেবে ১লক্ষ টাকায় ২৫০০টাকা যাকাত আদায় করতে হবে।


স্বর্ণের যাকাতের হিসাব : 
হাদীসে বর্ণিত আছে, ১ দিনার সমান ৪.২৫ গ্রাম স্বর্ণ। অতএব, ২০ দিনার সমান (২০×৪.২৫)=৮৫ গ্রাম স্বর্ণ। এক ভরি সমান ১১.৬৬ গ্রাম হলে, ৮৫ গ্রাম স্বর্ণে (৮৫÷১১.৬৬)=৭.২৯ ভুরি স্বর্ণ। অর্থাৎ কারো কাছে প্রায় সাড়ে ৭ ভরি পরিমাণ স্বর্ণ এক বছর যাবত থাকলে তার ওপর বর্তমান বাজার মূল্যের দাম হিসাব করে মোট মুল্যে ২.৫০% যাকাত দেয়া লাগবে আর এটা মুসলমানদের জন্য ফরজ। 


স্বর্ণের যাকাত: 
একজন ব্যক্তির মালিকানায় যে ক্যারেটের স্বর্ণ রয়েছে সেই ক্যারেটের প্রতি গ্রাম স্বর্ণের বাজার দর জানতে হবে। সে ব্যক্তির যদি একাধিক ক্যারেটের স্বর্ণ থাকে, তবে অধিক পরিমাণে স্বর্ণ থাকলে প্রত্যেক ক্যারেট স্বর্ণের মূল্য আলাদা করে জানতে হবে। আর পরিমাণ কম হলে যে ক্যারেটের স্বর্ণ বেশি আছে তার বাজার দর জানতে হবে। অতঃপর একগ্রাম স্বর্ণের মূল্যকে তার কাছে যে ক’গ্রাম স্বর্ণ রয়েছে তার সংখ্যা দিয়ে গুন দিতে হবে। এভাবে স্বর্ণের গ্রামকে মুদ্রায় পরিণত করতে হবে, অতঃপর মোট মূল্য থেকে ২.৫% যাকাত হিসেবে বের করতে হবে। এটিই স্বর্ণের যাকাত। 





যেসব সম্পদের উপর যাকাত ফরজঃ 
ইসলামের আইনে কোনো ব্যক্তির মালিকানাধীন সম্পদের পরিমাণের ভিত্তিতেই যাকাত নির্ধারণ করা হয়। আর যাকাত প্রযোজ্য হয় এমন প্রধান প্রধান সম্পদগুলোর উপর সেগুলো হলোঃ 
 ১) স্বর্ণ-রৌপ্য 
 ২) নগদ অর্থ 
 ৩) গবাদিপশু 
 ৪) ফসল ও সব ধরনের বাণিজ্যিক পণ্য 
 ৫) স্বর্ণ ও রৌপ্য (অলঙ্কার)

Post a Comment

[blogger]

MKRdezign

Contact Form

Name

Email *

Message *

Theme images by Jason Morrow. Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget